সন্ধান

কোল-গেট:সিবিআইকে ভর্ৎসনা কোর্টের

কেন্দ্রীয় সরকারের অস্তস্তি বাড়িয়ে কয়লা খনি বণ্টনে দুর্নীতি মামলার শুনানিতে সিবিআইকে কড়া ভাষায় ভর্ৎসনা করল সুপ্রিম কোর্ট৷ তদন্ত রিপোর্ট আদানপ্রদান নিয়ে কেন আদালতকে অন্ধকারে রাখা হয়েছিল, সিবিআইয়ের কাছে তা জানতে চাইল সর্বোচ্চ আদালত৷ কোল-গেট তদন্তের স্ট্যাটাস রিপোর্ট আইনমন্ত্রী অশ্বিনী কুমারকে দেখানোর ঘটনা সাধারণ ঘটনা নয় বলেও সুপ্রিম কোর্ট মন্তব্য করেছে। তদন্তের ব্যাপারে রাজনৈতিক নেতাদের নির্দেশ পালন না করার জন্য সিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। রাজনৈতিক কর্তৃপক্ষের দ্বারা সিবিআইয়ের প্রভাবিত হওয়া উচিত নয় মন্তব্য করে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে হবে। রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ থেকে সিবিআইকে মুক্ত করাটাই এখন অগ্রাধিকার বলেও আদালত মন্তব্য করেছে। ২৬ এপ্রিল হলফনামা পেশ করার পরও খসড়ায় ঠিক কোন কোন জায়গায় বদল আনা হয়েছে? সে বিষয়ে কেন এখনও পর্যন্ত কিছু জানানো হয়নি? তা নিয়েও প্রশ্ন তোলে সর্বোচ্চ আদালত৷

কয়লা দুর্নীতি নিয়ে সিবিআই ডিরেক্টর ২৬ এপ্রিল যে হলফনামা পেশ করেছে তাতে অনেকগুলি উদ্বেগজনক বিষয় রয়েছে উল্লেখ করে আদালত বলেছে, এক্ষেত্রে বিশ্বাসভঙ্গ হয়েছে।সরকারের সঙ্গে তদন্ত রিপোর্ট বিনিময়ে পুরো প্রক্রিয়াই ব্যাহত হয়েছে।উল্লেখ্য, এর আগে আদালতে পেশ করা হলফনামায় সিবিআই জানিয়েছিল, কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর কয়লা দুর্নীতির তদন্তের স্ট্যাটাস রিপোর্ট বদলানো হয়েছিল। সিবিআই ডিরেক্টর আদালতে জানিয়েছিলেন, স্ট্যাটাস রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রীর দফতর(পিএমও)এবং কয়লা মন্ত্রকের দুই আধিকারিককেও দেখানো হয়েছিল।

সিবিআইকে সুপ্রিম কোর্টের এই ভর্ৎসনায় কয়লা কেলেঙ্কারি মামলায় কেন্দ্রের অস্বস্তি আরও বাড়ল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা৷ প্রধান বিরোধী দল বিজেপি প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ও আইনমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে।বিজেপি নেতা রাজীব প্রসাদ রুডি বলেছেন, পুরো ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীও যুক্ত। তাই প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রী পদত্যাগ না করলে তাঁরা সংসদ অচল করে দেবেন। দলের নেতা বলবীরপুঞ্জ বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের এদিনের বক্তব্য খুবই গুরুতর। প্রধানমন্ত্রীর এখনই ইস্তফা দেওয়া উচিত। বামদলগুলি প্রধানমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি না করলেও আইনমন্ত্রীকে বরখাস্ত করার দাবি জানিয়েছেন। সিপিআই নেতা ডি রাজা বলেছেন, ঘটনার দায় প্রধানমন্ত্রীর গ্রহণ করা উচিত। এবিষয়ে তাঁর অবস্থান ব্যাখ্যার দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

কয়লা ব্লক বণ্টন দুর্নীতি ইস্যুতে আজ উত্তাল হয়ে ওছে সংসদ৷ দফায় দফায় মুলতুবি হয়ে যায় সংসদের অধিবেশন৷ আজ অধিবেশন শুরু হতেই কয়লা দুর্নীতি ইস্যুতে কেন্দ্রের সমালোচনায় সরব হয় বিরোধীরা৷ প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন তাঁরা৷ বিরোধীদের তুমুল হই-হট্টগোলের জেরে দফায় দফায় মুলতুবি হয়ে যায় সংসদের উভয় কক্ষ৷